মুসলিম বালিকাকে কুমারী রূপে পূজা করার প্রস্তুতি

মুসলিম বালিকাকে কুমারী রূপে পূজা করার প্রস্তুতি

লাল বেনারসি, পায়ে আলতা, রক্তচন্দনের টিপ, মাথায় ফুলের মুকুট নিয়ে দুর্গাষ্টমীর দিন পূজিতা হবেন কুমারী। দুর্গাপূজার অষ্টমীর দিন চার বছর বয়সী যে বালিকা কুমারী রূপে পূজিতা হবে, তার নাম ফাতেমা। সাম্প্রদায়িক অসহিষ্ণুতার সময়ে এক মুসলিম বালিকাকে কুমারী রূপে পূজা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কলকাতার বাগুইআটির অর্জুনপুরের দত্তবাড়ি।

ফাতেমাকে ‘কালিকা’ রূপে সিংহাসনে বসিয়ে আরাধনা ও পূজার্চনা করবেন দত্তবাড়ির কুলবধূ মৌসুমী দত্ত। তার কথায়, ‘যে ধর্মের নামে বিদ্বেষ সঞ্চিত করে, ঈশ্বরের অর্ঘ্য থেকে সে বঞ্চিত হয়। অষ্টমীর দিন তাই দুর্গা রূপে বরণ করে নেব ফাতেমাকে।’

পেশায় আইনজীবি মৌসুমী দেবী জানান, ‘প্রথম থেকেই দত্তবাড়িতে কুমারী পূজার আয়োজন করা হয়। সে বছর এক ব্রাহ্মণ কন্যাকে পূজা করি, তার পরের বছর অব্রাক্ষণ বাড়ির মেয়ে, ২০১৪ সালে ডোম পরিবারের এক শিশু কন্যা, গতবছর ফের এক ব্রাহ্মণ পরিবারের মেয়েকে কুমারী হিসাবে পূজা করি। বাড়ির সকলের সঙ্গে আলোচনা করে এবার সিদ্ধান্ত হয় যে দুর্গাপূজায় কোনো জাতপাতের ভেদাভেদ রাখব না আমরা। সেই মতে এবছর মুসলিম শিশু কন্যাকে পূজো করার সিদ্ধান্ত নেই।’

সিদ্ধান্ত অনুযায়ী খোঁজাখুঁজির পর অবশেষে কামারহাটির বাসিন্দা মোহাম্মদ ইব্রাহিমের সঙ্গে যোগাযোগ হয়। তিনি তার ভাগ্নি- বয়স চার, নাম ফাতেমাকে দিতে রাজি হন। ফাতেমা এখন মামাবাড়িতে ঘুরতে কলকাতায় এসেছে। তাকেই অষ্টমীর দিন বরণ করে নেবে দত্তবাড়ি। তারপর তাকে লাল টুকটুকে বেনারসি, চন্দন, ফুলের মালা দিয়ে দুর্গা প্রতিমার মতো করে সাজিয়ে কুমারী পূজা করা হবে। সে দিনটির দিকেই তাকিয়ে দুই পরিবার

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 banglareport71.com